Home Videos Photos News & media Blogs Contact    
News and Articals

বিএনপির ৫ নেতার আট দিনের রিমান্ড

Edit Date:11/14/2013 12:00:00 AM

 
মতিঝিল থানায় বিস্ফোরক আইনে দায়ের করা দুটি মামলায় গ্রেফতার করা বিএনপির শীর্ষ ৫ নেতার ৮ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত। এর মধ্যে মতিঝিল থানায় দায়ের করা বিস্ফোরক আইনের মামলায় ৫ দিন এবং একই থানায় দায়ের করা অপর মামলায় ৩ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করে আদালত। এ ৫ নেতা হলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, এম কে আনোয়ার, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি আবদুল আওয়াল 
মিন্টু এবং খালেদা জিয়ার বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস।
গতকাল ঢাকা মহানগর হাকিম মো. রেজাউল করিমের আদালত শুনানি শেষে এ আদেশ দেয়। আদেশের পর বিএনপি সমর্থিত আইনজীবীরা তাদের মুক্তির দাবিতে আদালতের সামনে মিছিল করেন। এর আগে প্রয়োজনীয় নথি না থাকায় বেলা পৌনে ১১টায় শুনানি সাময়িকভাবে মুলতবি করেন ঢাকা মহানগর হাকিম মো. রেজাউল করিম। নথি নিয়ে আসার পর ১২টা ৪০ মিনিটে আদালতে শুনানি শুরু হয়।
গতকাল সকাল ১০টা ৩২ মিনিটে রেজাউল করিমের আদালতে বিএনপির ৫ নেতার রিমান্ড শুনানি করেন মহানগর পিপি আবদুল্লাহ আবু। এ সময় আসামিদের পক্ষে রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিনের শুনানি করলে ম্যাজিস্ট্রেট তাদের জানান, দুটি মামলার একটির নথি তার কাছে নেই। এ সময় আসামিপক্ষ নথিটি মহানগর দায়রা জজ আদালত থেকে সিএমএম আদালতে আনার জন্য অনুরোধ জানান।
এরপর ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ আদালতের অনুমতি নিয়ে বলেন, দুটি মামলার শুনানি একই সঙ্গে হবে, কারণ মামলা দুটির অভিযোগ একই। তিনি বলেন, এ দুটি মামলায় কিছু নেই। আমাদের রাজনীতিবিদদের অপমান করার জন্যই এ মামলা আনা হয়েছে। মওদুদ আহমদের বক্তব্যকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষের আইনজীবীদের মধ্যে হট্টগোলের সৃষ্টি হলে ম্যাজিস্ট্রেট নথিটি আনার অনুমতি দিয়ে বেলা পৌনে ১১টার সময় এজলাস থেকে নেমে যান। 
গতকাল আদালতে আসামিপক্ষে অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া, অ্যাডভোকেট মাসুদ আহমেদ তালুকদার, খোরশেদ মিয়া আলমসহ অর্ধশত আইনজীবী উপস্থিত ছিলেন। শুনানি চলাকালে আদালতের বাইরে ৫ নেতার মুক্তির দাবিতে বিএনপি সমর্থিত আইনজীবীরা বিভিন্ন স্লোগান দেন।
এর আগে গত শনিবার ঢাকা মহানগর হাকিম জয়নব বেগমের আদালত মামলার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র না থাকায় রিমান্ড শুনানি মুলতবি করে আজ দিন ধার্য করেন। একই সঙ্গে ৫ নেতার জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণ করেন। 
উল্লেখ্য, গত ৮ নভেম্বর রাত ৮টায় রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলের সামনে থেকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, এম কে আনোয়ার ও ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়াকে এবং একই দিন রাত ১টায় বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশানের বাসা থেকে বের হওয়ার সময় চোরপারসনের উপদেষ্টা আবদুল আওয়াল মিন্টু ও বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাসকে আটক করা হয়।
এরপর গত ৫ নভেম্বর মতিঝিল থানায় দায়ের করা বিস্ফোরক আইনের মামলা (নম্বর ১৬) এবং ২৪ সেপ্টেম্বর একই থানায় দায়ের করা বিস্ফোরক আইনের আরেকটি মামলায় (নম্বর ৪৪) তাদের গ্রেফতার দেখানো হয়। দুই মামলায় ১০ দিন করে ২০ দিনের রিমান্ড চেয়ে তাদের আদালতে পাঠানো হয়।

 

Terms & Conditions © Copy right by Awami Brutality 2010