Home Videos Photos News & media Blogs Contact    
News and Articals

রাবিতে ছাত্রদলের মিছিলে ছাত্রলীগের হামলায় আহত ১৫

Edit Date:10/11/2010 12:00:00 AM

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রদলের মিছিলে গতকাল অতর্কিত হামলা চালিয়েছে ছাত্রলীগ ক্যাডাররা। এ ঘটনায় ছাত্রদল রাবি শাখার আহ্বায়কসহ অন্তত ১৫ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। আহতদের রাজশাহীর বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় ছাত্রদলের শান্তিপ্রিয় মিছিলে ছাত্রলীগ ক্যাডারদের উস্কানি দেয়ার অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রফেসর চৌধুরী মো. জাকারিয়ার পদত্যাগ দাবি করেছে ছাত্রদল। শনিবার দুপুরে শহীদ জেহাদ দিবস উপলক্ষে ক্যাম্পাসে মিছিল বের করলে ছাত্রলীগ কর্মীরা ছাত্রদল নেতাকর্মীদের ওপর এ হামলা চালায়। এসময় পুলিশ নীরব ভূমিকা পালন করে বলে ছাত্রদল নেতাকর্মীদের অভিযোগ।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ’৯০-এর ১১ অক্টোবর স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনের সময় ঢাকায় নিহত সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ার ছাত্রদল নেতা নাজির উদ্দিন জেহাদের মৃত্যুদিবস উপলক্ষে রাবি ছাত্রদল বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ক্যাম্পাসে মৌনমিছিল বের করে। মিছিলটি ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ শেষে জুবেরী ভবনের সামনে আসলে সেখানে এক সমাবেশের আয়োজন করে ছাত্রদল নেতাকর্মীরা। সমবেশে ছাত্রদল আহ্বায়ক আরাফাত রেজা আশিকের সভাপতিত্বে এবং যুগ্ম আহ্বায়ক সালাহউদ্দিন রানার পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সভাপতি আবুবকর সিদ্দিক। সমাবেশ চলাকালে ছাত্রলীগ নেতা আহমেদ আলী, রাঞ্জু ও ইলিয়াসের নেতৃত্বে ৩০-৩৫ ছাত্রলীগ কর্মী ছাত্রদলের ওই সমাবেশে অতর্কিত হামলা চালায়। হামলায় রাবি ছাত্রদল আহ্বায়ক আরাফাত রেজা আশিক, যুগ্ম আহ্বায়ক সালাহউদ্দিন রানা, একরামুল হক হীরা, কামরুল হাসান, ইমতেয়াজ আহমেদ, তন্ময়, আবদুর রাজ্জাক, রোজ, অলিন, ইশা, দেলোয়ার, আতিক, রাহী, নাসির, জহির ও সেলিমসহ অন্তত ১৫ নেতাকর্মী আহত হন। আহতদের নগরীর বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিত্সা দেয়া হয়। হামলার সময় সমাবেশস্থলে শতাধিক পুলিশ উপস্থিত থাকলেও তারা নীরব ভূমিকা পালন করে বলে ছাত্রদল নেতাকর্মীদের অভিযোগ।
রাবি ছাত্রদল আহ্বায়ক আরাফাত রেজা আশিক অভিযোগ করে বলেন, আগামীকালের (আজ) ছাত্র গণজমায়েতকে সফল করতে ছাত্রদল তাদের গণতান্ত্রিক অধিকার হিসেবে মিছিল বের করলে প্রক্টরের উস্কানিতে ছাত্রলীগ ক্যাডাররা মিছিলে হামলা চালিয়ে আমাদের অনেক নেতাকর্মীকে আহত করে। তিনি এ ঘটনায় প্রক্টর প্রফেসর চৌধুরী মো. জাকারিয়ার উস্কানি দেয়ার কথা উল্লেখ করে অবিলম্বে তার পদত্যাগ দাবি করেন। ছাত্রদল যুগ্ম আহ্বায়ক সালাহউদ্দিন রানা বলেন, ছাত্রদলের পূর্বনির্ধারিত মিছিল-সমাবেশে ছাত্রলীগ যেভাবে হামলা চালিয়েছে, তাতে মধ্যযুগের বর্বরতাকেও হার মানিয়েছে। তিনি আরও বলেন, এর আগে নাটোরে প্রকাশ্যে একজন সফল উপজেলা চেয়ারম্যানকে কুপিয়ে হত্যা এবং সাংবাদিকদের মারধরের ঘটনা ঘটানোর মাত্র একদিন পর ছাত্রলীগ নামধারী সন্ত্রাসীরা ছাত্রদলের শান্তিপূর্ণ সমাবেশে হামলা চালায়, যা দুঃখজনক। বর্তমান সরকার নিজেদের ব্যর্থতা ঢাকতে কেউ যাতে মুখ খুলতে না পারে, সেজন্য তাদের ছাত্রসংগঠন দিয়ে বিরোধীদলীয় নেতাকর্মীদের ওপর এভাবে হামলা চালাচ্ছে বলে তিনি অভিযোগ করেন।
এদিকে ছাত্রলীগ নেতা ও স্থগিতকৃত কমিটির সভাপতি প্রার্থী আহমেদ আলী বলেন, যে কোনো মূল্যে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বিএনপি-জামায়াতের ছাত্রসংগঠন ছাত্রদল ও শিবিরের রাজনীতি মোকাবিলা করা হবে।
মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল খায়ের বলেন, অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার পর এখন পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

http://www.amardeshonline.com/pages/details/2010/10/11/48225

Terms & Conditions © Copy right by Awami Brutality 2010